Saturday, September 24, 2022

শিব দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ স্তোত্রম

শিব দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ স্তোত্রম // Shiva Dwadasha Jyotirlinga Stotram

Shiva Dwadasha Jyotirlinga Stotram

দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ স্তোত্র হল ভগবান শিবের এক শক্তিশালী মন্ত্র।ভগবান শিবের ভারতে মোট বারোটি জ্যোতির্লিঙ্গ রয়েছে যাকে একসঙ্গে দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ বলা হয়। এই বারোটি স্থানে শিব স্বয়ম্ভু হয়েছিলেন। হিন্দু ধর্মে এই দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ দর্শন অত্যন্ত পুণ্যের বলে মনে করা হয়। কিন্তু সকলের পক্ষে এই ১২ টি জ্যোতির্লিঙ্গ দর্শন সম্ভব হয় না। তাই কেউ যদি এই প্রত‍্যহ দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ স্তোত্র পাঠ করে তাহলে তার এই দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ দর্শনের সমান ফল মেলে।


দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ স্তোত্র :


সৌরাষ্ট্রে সোমনাথং চ শ্রীশৈলে মল্লিকার্জুনম্।

উজ্জয়িন্যাং মহাকালমোঙ্কারামমলেশ্বরম্।।

পরল্যাং বৈদ্যনাথং চ ডাকিন্যাং ভীমশঙ্করম্।

সেতুবন্ধে তু রামেশং নাগেশং দারুকাবনে।।

বারাণস্যাং তু বিশ্বেশম ত্র্যম্বকং গৌতমীতটে।

হিমালয়ে তু কেদারং ঘুশ্মেশং চ শিবালয়ে।।

এতানি জ্যোতির্লিঙ্গানি সায়ং প্রাতঃ পঠেন্নরঃ।

সপ্তজন্মকৃতং পাপং স্মরণেন বিনশ্যতি।।

এতেশাং দর্শনাদেব পাতকং নৈব তিষ্ঠতি।

কর্মক্ষয়ো ভবেত্তস্য যস্য তুষ্টো মহেশ্বরাঃ।।


অর্থ :

সৌরাষ্ট্রে সোমনাথ এবং শ্রী-শৈলমে মল্লিকার্জুন।

উজ্জয়িনীতে মহাকাল এবং অমলেশ্বরে ওঙ্কারেশ্বর। পরলীতে বৈদ্যনাথ এবং ডাকিনীতে ভীমশঙ্কর। সেতুবন্ধে রামেশ্বর এবং দারুকাবনে নাগেশ্বর। বারাণসীতে বিশ্বেশ্বর এবং গৌতমী নদীর তীরে ত্র্যম্বক। হিমালয়ে কেদারনাথ এবং শিবালয়ে ঘুশ্মেশ্বর। এই সকল জ্যোতির্লিঙ্গের পাঠ সকালে এবং সন্ধ্যা বেলা করলে গত সাত জন্মের পাপ বিনষ্ট হবে। এই সকল দর্শন করলে পাপ খন্ডন হয়। যার ওপর মহেশ্বর তুষ্ট হবেন তার কর্ম ক্ষয় পাবে।


এই মন্ত্র পাঠের বিধি : এই মন্ত্রেই রয়েছে এই মন্ত্র পাঠের বিধি। এই মন্ত্র আপনি সকালে ও সন্ধ্যায় দুবার করে পাঠ করতে পারেন। বাড়িতে কোন মহাদেবের ছবি বা শিব লিঙ্গের সামনে বসে আপনি এই মন্ত্র পাঠ করতে পারেন।

শণি গায়েত্রী মন্ত্র

শণি গায়েত্রী মন্ত্র // মন্ত্র পাঠের বিধি এবং উপকারিতা


Shani Gayetri mantra

পাপ পুণ‍্যের দেবতা শণির মন্ত্র পাঠ করলে আমাদের জীবনে সকল বাধা দূর হয়। কিন্তু শণি দেবের দৃষ্টি একবার যার ওপরে পরে তার আর দুর্দশার অন্ত থাকে না। শণি আমাদের জীবনের কঠোর সত‍্যের মুখোমুখি করে। কিন্তু শত চেষ্টার পরেও কী শণি দেবের প্রকোপ থেকে বেঁচে থাকা যায়? হ‍্যাঁ শণি দেবের প্রকোপ লাঘু করতে শণি দেবের এই গায়েত্রী মন্ত্র যদি সঠিক বিধি মেনে পাঠ করা যেতে পারে।


মন্ত্র পাঠের বিধি : 


আপনারা প্রতি শণিবার নিকটবর্তী কোন শণি মন্দিরে গিয়ে সরিষার তেলের প্রদীপ জ্বালিয়ে শণিদেবের পুজো করে এই শণি মন্ত্র ১০৮ বার পাঠ করবেন।


শণি দেবের গায়েত্রী মন্ত্র : 


ওঁ সূর্যপুত্রায় বিদ্মহে

মৃত‍্যুরূপায় ধীমহি

তন্নোঃ সৌরিঃ প্রচোদয়াৎ।


এই শণি গায়েত্রী মন্ত্র পাঠের উপকারিতা :


১. আপনার ওপর শণি মহারাজের কোন প্রকার কুদৃষ্টি প্রভাব পড়বে না।

২. আপনার জীবনে সফলতা আসবে দ্রুত।

৩. বিবাহ সংক্রান্ত বাধা দূরে যায়।

৪. মন্ত্রটি আপনাকে সর্বত্র সৌভাগ্য এবং সাফল্য প্রদান করে কারণ শনি আমাদের ভাগ্যের শাসক।

৫. শণি ঠাকুরের কৃপা সর্বদা বজায় থাকবে।

Monday, July 11, 2022

ভগবান শিবের 108 Naam Mantra in Bengali

ভগবান শিবের অষ্টোওর শতনাম মন্ত্র // 108 Naam Mantra of Lord Shiva


Aastottar Satanama Mantra of Shiva




ভগবান শিবকে প্রসন্ন করবার অনেক মন্ত্র রয়েছে। তার মধ্যে অন‍্যতম মন্ত্র হল ভগবান শিবের অষ্টোওর শতনাম মন্ত্র বা 108 Naam Mantra of Lord Shiva। এই মন্ত্রের নিয়মিত পাঠ আপনার জীবন থেকে অনেক বাধা দূর করে নিয়ে আসে সাফল‍্য। ভোলেনাথের কৃপা বর্ষিত হয় এই মন্ত্র পাঠে। আজ আমরা এই আলোচনায় যে বিষয়ে আলোচনা করব :

1. কিভাবে এই শিবের অষ্টোওর শতনাম মন্ত্র পাঠ করবেন।
2. এই শিবের 108 মন্ত্র পাঠের উপকারিতা।
3. অষ্টোওর শতনাম মন্ত্র বা 108 Naam Mantra of Lord Shiva।


কিভাবে এই শিবের অষ্টোওর শতনাম মন্ত্র পাঠ করবেন : 


স্নান সেরে, শুদ্ধ বস্ত্র পরিধান করে কোন শিব লিঙ্গের সামনে পদ্মাসনে ধ‍্যান মুদ্রায় বসে এই মন্ত্র পাঠ বা শ্রবন করতে হয়। অবশ্যই এই মন্ত্র পাঠ সময় নিয়ে করবেন। এই মন্ত্র পাঠে তাড়াতাড়ি করবেন না।

এই শিবের 108 মন্ত্র পাঠের উপকারিতা: 


১. এই মন্ত্র পাঠে আপনার মন ও মস্তিষ্ক থেকে সমস্ত প্রকার নেতিবাচক চিন্তা দূর হয়।
২. আপনার জীবনে এবং আপনার মধ্যে সর্বদা Positive শক্তি বজিয়ে থাকবে।
৩. আপনার জীবনের সকল বাধা দূর হয়।
৪. আপনার জীবনে আসে খুব সহজেই সফলতা।
৫. কোন প্রকার ভূত প্রেত ইত্যাদির ভয় দূর করে।

অষ্টোওর শতনাম মন্ত্র বা 108 Naam Mantra of Lord Shiva


ওঁ শিবায় নমঃ ।
ওঁ মহেশ্বরায় নমঃ । 
ওঁ শম্ভবে নমঃ । 
ওঁ পিনাকিনে নমঃ । 
ওঁ শশিশেখরায় নমঃ । 
ওঁ বামদেবায় নমঃ । 
ওঁ বিরূপাক্ষায় নমঃ । 
ওঁ কপর্দিনে নমঃ । 
ওঁ নীললোহিতায় নমঃ । 
ওঁ শঙ্করায় নমঃ । 10

ওঁ শূলপাণিনে নমঃ । 
ওঁ খট্বাঙ্গিনে নমঃ । 
ওঁ বিষ্ণুবল্লভায় নমঃ । 
ওঁ শিপিবিষ্টায় নমঃ । 
ওঁ অম্বিকানাথায় নমঃ । 
ওঁ শ্রীকণ্ঠায় নমঃ । 
ওঁ ভক্তবত্সলায় নমঃ । 
ওঁ ভবায় নমঃ । 
ওঁ শর্বায় নমঃ । 
ওঁ ত্রিলোকেশায় নমঃ । 20

ওঁ শিতিকণ্ঠায় নমঃ । 
ওঁ শিবাপ্রিয়ায় নমঃ । 
ওঁ উগ্রায় নমঃ । 
ওঁ কপালিনে নমঃ । 
ওঁ কামারয়ে নমঃ । 
ওঁ অন্ধকাসুরসূদনায় নমঃ । 
ওঁ গঙ্গাধরায় নমঃ । 
ওঁ ললাটাক্ষায় নমঃ । 
ওঁ কলিকালায় নমঃ । 
ওঁ কৃপানিধয়ে নমঃ । 30

ওঁ ভীমায় নমঃ । 
ওঁ পরশুহস্তায় নমঃ । 
ওঁ মৃগপাণয়ে নমঃ । 
ওঁ জটাধরায় নমঃ । 
ওঁ কৈলাসবাসিনে নমঃ । 
ওঁ কবচিনে নমঃ । 
ওঁ কঠোরায় নমঃ । 
ওঁ ত্রিপুরান্তকায় নমঃ । 
ওঁ বৃষাঙ্গায় নমঃ । 
ওঁ বৃষভারূঢায় নমঃ । 40

ওঁ ভস্মোদ্ধূলিতবিগ্রহায় নমঃ । 
ওঁ সামপ্রিয়ায় নমঃ । 
ওঁ স্বরময়ায় নমঃ । 
ওঁ ত্রয়ীমূর্তয়ে নমঃ । 
ওঁ অনীশ্বরায় নমঃ । 
ওঁ সর্বজ্ঞায় নমঃ । 
ওঁ পরমাত্মনে নমঃ । 
ওঁ সোমসূর্যাগ্নিলোচনায় নমঃ । 
ওঁ হবিষে নমঃ । 
ওঁ য়জ্ঞময়ায় নমঃ । 50

ওঁ সোমায় নমঃ । 
ওঁ পঞ্চবক্ত্রায় নমঃ । 
ওঁ সদাশিবায় নমঃ । 
ওঁ বিশ্বেশ্বরায় নমঃ । 
ওঁ বীরভদ্রায় নমঃ । 
ওঁ গণনাথায় নমঃ । 
ওঁ প্রজাপতয়ে নমঃ । 
ওঁ হিরণ্যরেতসে নমঃ । 
ওঁ দুর্ধর্ষায় নমঃ । 
ওঁ গিরিশায় নমঃ । 60

ওঁ অনঘায় নমঃ । 
ওঁ ভুজঙ্গভূষণায় নমঃ। 
ওঁ ভর্গায় নমঃ । 
ওঁ গিরিধন্বনে নমঃ । 
ওঁ গিরিপ্রিয়ায় নমঃ । 
ওঁ কৃত্তিবাসসে নমঃ । 
ওঁ পুরারাতয়ে নমঃ । 
ওঁ ভগবতে নমঃ । 
ওঁ প্রমথাধিপায় নমঃ । 
ওঁ মৃত্যুঞ্জয়ায় নমঃ । 70

ওঁ সূক্ষ্মতনবে নমঃ । 
ওঁ জগদ্ব্যাপিনে নমঃ । 
ওঁ জগদ্গুরুবে নমঃ । 
ওঁ ব্যোমকেশায় নমঃ । 
ওঁ মহাসেনজনকায় নমঃ । 
ওঁ চারুবিক্রমায় নমঃ । 
ওঁ রুদ্রায় নমঃ । 
ওঁ ভূতপতয়ে নমঃ । 
ওঁ স্থাণবে নমঃ । 
ওঁ অহির্বুধ্ন্যায় নমঃ । 80

ওঁ দিগম্বরায় নমঃ । 
ওঁ অষ্টমূর্তয়ে নমঃ । 
ওঁ অনেকাত্মনে নমঃ । 
ওঁ সাত্ত্বিকায় নমঃ । 
ওঁ শুদ্ধবিগ্রহায় নমঃ । 
ওঁ শাশ্বতায় নমঃ । 
ওঁ খণ্ডপরশবে নমঃ । 
ওঁ রজসে নমঃ । 
ওঁ পাশবিমোচনায় নমঃ । 
ওঁ মৃডায় নমঃ । 90

ওঁ পশুপতয়ে নমঃ । 
ওঁ দেবায় নমঃ । 
ওঁ মহাদেবায় নমঃ । 
ওঁ অব্যয়ায় নমঃ । 
ওঁ হরয়ে নমঃ । 
ওঁ ভগনেত্রভিদে নমঃ । 
ওঁ অব্যক্তায় নমঃ । 
ওঁ দক্ষাধ্বরহরায় নমঃ । 
ওঁ হরায় নমঃ । 
ওঁ পূষাদন্তভিদে নমঃ । 100

ওঁ অব্যগ্রায় নমঃ । 
ওঁ সহস্রাক্ষায় নমঃ । 
ওঁ সহস্রপদে নমঃ । 
ওঁ অপবর্গপ্রদায় নমঃ । 
ওঁ অনন্তায় নমঃ । 
ওঁ তারকায় নমঃ । 
ওঁ পরমেশ্বরায় নমঃ । 
ওঁ ত্রিলোচনায় নমঃ । 108

Sunday, July 10, 2022

বাংলায় Shiva 12 Naam Mantra

শিব দ্বাদশা নামাবলী মন্ত্র // বাংলায় Shiva 12 Naam Mantra // Shiva Mantra


                   Shiva Dvadasha Namabali Mantra


শিব দ্বাদশা নামাবলী মন্ত্র বা শিবের 12 নাম মন্ত্র ভগবান শিবের এক শক্তিশালী মন্ত্র। এই মন্ত্র পাঠে খুব সহজে মহাদেব শিবকে প্রসন্ন করা যায় এবং এই শিবের 12 নাম মন্ত্র পাঠে তার কৃপা বর্ষিত হয়।


Topics of Discussion :


1. How to Chant Shiv 12 Naam Mantra.

2. Benefits of Shiv 12 Naam Mantra.

3. Shiv 12 Naam Mantra.


শিবের 12 নাম মন্ত্র পাঠের নিয়ম বা বিধি:

এই মন্ত্রের কোন বিধি বিধান নেই বা কোনো বিধিনিষেধ নেই। শুধুমাত্র এই মন্ত্র পাঠেই মেলে এই মন্ত্রের শুভ ফল। আপনি যদি প্রতিদিন সকালে ভগবান ভোলেনাথের এই 12 নাম মন্ত্র জপ করে আপনার দিন শুরু করেন তাহলে আপনার সারা দিন যাবে সকল প্রকার সংকট বিহীন। খুব ভালো হয় আপনি যদি প্রতিদিন সকালে স্নান সেরে শিবলিঙ্গের বেলপাতা বা কোন ফুল অর্পণ করতে করতে এই শিব দ্বাদশা নামাবলী মন্ত্র পাঠ করেন।আপনি যখন শিবলিঙ্গে দুধ বা জল অর্পন করবেন তখনও এই মন্ত্র জপ করতে করতে আপনি দুধ বা জল অর্পণ করতে পারেন। আপনি অবশ্যই প্রতি সোমবার বা মাসিক শিবরাত্রির দিন বা মহা শিবরাত্রির দিন এই সহজ পদ্ধতিতে এই মন্ত্র পাঠ করুন। তবে আপনি যদি সারাদিনের যেকোন সময়ে কোন আচার উপাচার ছাড়াই একবার এই মন্ত্র পাঠ করেন তাহলে আপনার মিলবে সমান সুফল।

এই মন্ত্র পাঠের উপকারিতা :

আপনি যদি নিয়মিত ভোলেনাথের এই 12 নাম মন্ত্র পাঠ করেন তাহলে আপনার ভগবান শিবের পূর্ণ কৃপা প্রাপ্ত হয়। আপনার জীবনের সকল বাধা-বিপত্তি কেটে যায় আসে সফলতা। বৈবাহিক ও পারিবারিক সম্পর্কে ঘটে উন্নতি। শত্রু নাশ হয়। কেউ আপনার কোনো রকম ক্ষতি করতে পারে না। যে গৃহে এই মন্ত্র পাঠ হয় সেই গৃহে কোন প্রকার Negative শক্তি প্রবেশ করতে পারে না।

শিব দ্বাদশা নামাবলী মন্ত্র // বাংলায় Shiva 12 Naam Mantra:


এক - ঔঁ শিবায়ে নমঃ |

দুই  - ঔঁ রুদ্রায় নমঃ |

তিন - ঔঁ পশুপতয়ে নমঃ |

চার - ঔঁ নীলকণ্ঠায় নমঃ |

পাঁচ - ঔঁ মহেশ্বরায় নমঃ।

ছয় - ঔঁ হরিকেশায় নমঃ।

সাত - ঔঁ বীরূপক্ষায় নমঃ ।

আট - ঔঁ পিনাকিনে নমঃ |

নয় - ঔঁ ত্রিপুরান্তকায় নমঃ |

দশ - ঔঁ শাম্ভেব নমঃ | 

এগার - ঔঁ শুলিনে নমঃ |

বারো - ঔঁ মহাদেবায় নমঃ ||


শিব দ্বাদশা নামাবলী মন্ত্র সমাপ্ত


Tuesday, July 5, 2022

গৃহের কোথায় এবং কোন ধরনের গণেশের মূর্তি রাখতে হয়?

গৃহের কোথায় এবং কোন ধরনের গণেশের মূর্তি রাখতে হয়?


Ganesha idol for home and office

মহাদেব শিব ও পার্বতীর পুত্র গণেশের পুজো আমরা যে কোন পুজো অনুষ্ঠানের আগে করে থাকি।আমরা আমাদের ঘরের শোভা বৃদ্ধি করতে সিদ্ধিদাতা গণেশের মূর্তি বা ছবি দিয়ে আমাদের ঘর সাজিয়ে থাকি। কিন্তু আমরা অনেক সময় ভুলে যাই আমাদের দেবদেবী গুলির ছবি বা মূর্তি ঘর সাজানোর উপকরণ নয় এগুলি আমাদের আরাধ্য দেবী এদেরকে আমরা পুজো করি। তাই যেখানে সেখানে দেবদেবীর মূর্তি রাখলে সেগুলি আমাদের শুভ ফল দেওয়ার পরিবর্তে সেগুলি অশুভ ফল দিতে পারে। এই সমস্ত দেবদেবীর ছবি বা মূর্তি ঘরে যেখানে সেখানে লাগিয়ে দেওয়াটা মোটেই বাস্তবসম্মত নয়।


আজকে যে বিষয়গুলি আলোচনা করব :


এক: বাড়ির কোথায় সিদ্ধিদাতা গণেশের ছবি বা মূর্তি লাগানো উচিত।

দুই : বাড়ির কোথায় গণেশের ছবি বা মূর্তি লাগানো উচিত নয়।

তিন : কোন ধরনের গণেশের ছবি বা মূর্তি গৃহের পক্ষে শুভ?

চার : কোন ধরনের গণেশের ছবি গৃহের পক্ষে একদমই শুভ নয়।

পাঁচ : ব্যবসা এবং চাকরি সংক্রান্ত সমস্যায় কোন ধরনের গণেশের মূর্তি স্থাপন করা উচিত?


তাহলে আমরা আলোচনা প্রথমেই আসি বাড়ি কোথায় সিদ্ধিদাতা গণেশের ছবি লাগানো উচিত?


1. প্রথমেই বলি বাড়ির কোন দিকে কোন দেওয়ালে গণেশের ছবি লাগানো উচিত? বাড়ির উওর বা উত্তর-পূর্ব দেওয়ালে গণেশের ছবি লাগান উচিত। এতে আপনার পরিবারে আসে শান্তি সমৃদ্ধি এবং আপনার বৈবাহিক সম্পর্কের উন্নতি হবে।




2. আপনি আপনার বাড়ির প্রবেশদ্বারে গণেশের ছবি বা মূর্তি রাখুন। আপনি যদি আপনার বাড়ির মূল প্রবেশদ্বারের ওপরে গণেশের ছবি বা মূর্তি রাখেন তাহলে কোন প্রকার নেগেটিভ শক্তি আপনার গৃহে প্রবেশ করতে পারবে না। এছাড়া আপনি আপনার বাড়ির এমন স্থানে গণেশের মূর্তি বা ছবি লাগান যেখানে আপনার বাড়িতে ঢুকলেই সেই মূর্তি ছবি সবার চোখে পড়ে।


3. আপনি আপনার বাড়ির বৈঠকখানায় ড্রইংরুমে শিব পার্বতীর কোলে গণেশের ছবি উওর - উত্তর-পূর্ব দেওয়ালে রাখতে পারেন এতে আপনার পরিবারের সকলের সঙ্গে সকলের সম্পর্ক খুব ভাল হবে। 

4. আপনার পরিবারের খাবার স্থানে অর্থাৎ ডাইনিং টেবিল পাশে যদি সিদ্ধিদাতা ছবি লাগান তাহলে আপনার পরিবারের সকলের সঙ্গে সকলের সম্পর্ক ভালো হবে এবং গৃহে সুখ সমৃদ্ধি বৃদ্ধি পাবে।


5. আপনার ঠাকুর ঘরে যেন অবশ্যই গণেশের মূর্তি থাকে কারণ ঠাকুরঘর সবচেয়ে পবিত্র স্থান।

 

গৃহের কোথায় গণেশের মূর্তি বা ছবি লাগান উচিত নয় :


1. অনেকেই দেখা যায় যে বাথরুমে গণেশের সুন্দর সুন্দর টাইলস দিয়ে বাথরুম তৈরি করে কিন্তু মাথায় রাখবেন এটি দেখতে যতটা সুন্দর এটা কিন্তু আপনার ও আপনার পরিবারের পক্ষে শুভ নয়। তাই বাথরুমে কখনো এই কাজটি করবেন না।

2. গ্যারেজ সিঁড়ির নিচে কখনোই গণেশের ছবি বা মূর্তি রাখবেন না।

3. বাড়ির দক্ষিণ দেওয়ালে গণেশের ছবি বা মূর্তি না রাখাই ভালো।

4. আপনার বেডরুমের বাড়াতে কখনোই গণেশের পেইন্টিং বেডরুমে রাখবেন না।


কোন ধরনের গণেশের ছবি বা মূর্তি গৃহের পক্ষে শুভ:

1. এই আলোচনা প্রথমেই বলি গণেশ এর মূর্তির আকার খুব একটা বড় না রাখার পরামর্শ দেন বাস্তুশাস্ত্রবিদরা। আপনি আপনার বাড়িতে সর্বদা ছোট গণেশের মূর্তি রাখবেন।


2. এবার বলি কোন রঙের গণেশের মূর্তি আপনার বাড়িতে রাখা উচিত?


সাদা গণেশের মূর্তি আপনার গৃহে রাখুন এটিকে আপনার গৃহের পক্ষে অত্যন্ত শুভ বলে মনে করা হয়। তবে আপনার এখনো যদি সফলতা অধরা থাকে সিঁদুর রঙে গণেশের মূর্তিও আপনি বাড়িতে লাগাতে পারেন।


3. আবার বাস্তুমতে বাড়িতে ক্রিস্টালে গণেশের মূর্তি রাখতে পারেন এতে আপনার বাড়িতে সুখ সমৃদ্ধি এবং শান্তি বজায় থাকে এবং সকল বাধা-বিপত্তি দূর হয়।


4. এবার বলি এই আলোচনার গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তা হল গনেশের সুর। আপনারা লক্ষ্য করবেন সিদ্ধিদাতা গণেশের সুর মূর্তির ডানদিকে আবার কোনোটার সুর বামদিকে আবার কোনোটার সোজা। বাস্তুমতে গণেশ ঠাকুরের সুর যদি ডান দিকে থাকে তাহলে সেই গণেশের মূর্তি গৃহে পুজো না করাই ভালো এবং সেই মূর্তি গৃহের বাইরে কোন মন্দিরে পুজো দেওয়া উচিত। যদিও এর পেছনে অনেক পৌরাণিক কারণ রয়েছে। তা আমরা অন্য কোথাও আলোচনা করব। সোজা সুর রয়েছে এমন গণেশের মূর্তিও গৃহে রাখতে পারেন।এই মুহূর্তে আপনার গৃহের পক্ষে অত্যন্ত শুভ বলে মনে করেন বাস্তুবিদরা। তবে এই মূর্তি গৃহে থাকলে গৃহের পরিবেশ খুব পবিত্র রাখতে হয় এবং আমিষ ভজন একদমই করা যায় না।


5. গণেশ ঠাকুরের হাতে লাড্ডু রয়েছে এবং পায়ের কাছে তার বাহন রয়েছে এবং গণেশের মূর্তি স্থাপন করুন।


কোন ধরনের গণেশের মূর্তি বা ছবি গৃহের পক্ষে শুভ নয় : 


1. আমরা অনেক সময় গৃহসজ্জা বাড়াতে ডান্সিং গণেশের মূর্তি রেখে থাকি। এটি দেখতে খুব ভালো লাগলেও এটি কিন্তু গৃহে না রাখাই ভালো কারণ এতে সিদ্ধিদাতা অগ্নিশর্মা রুপের প্রকাশ।


2. গৃহে ডানদিকে সুরবালা গণেশের মূর্তি না রাখাই ভালো বলে মনে করেন বাস্তুশাস্ত্র। এমন গণেশের মূর্তি কে সিদ্ধিবিনায়ক বলা হয়। মহারাষ্ট্রে সিদ্ধিবিনায়ক মন্দিরে এই মূর্তি পূজা করা হয়। এই মূর্তি প্রকৃতপক্ষে খুব জাগ্রত তবে এই মূর্তি গৃহে রাখলে অনেক নিয়ম ও আচার পালন করতে হয় তাই এই মূর্তি গৃহে রাখতে বারণ করেন বাস্তুবিদরা। 3. কখনোই গণেশ এর ভাঙ্গা মূর্তি বা ছবি রাখতে হয় না।


4. দাঁড়িয়ে থাকা গণেশের মূর্তি গৃহে রাখা উচিত নয়।


অফিসে বা ব্যবসা স্থলে কোন ধরনের গণেশের মূর্তি রাখা ভাল :


গণেশ হলেন সিদ্ধিদাতা। চাকুরী ক্ষেত্রে বা ব্যবসার উন্নতিতে অবশ্যই অফিসে বা ব্যবসা স্থলে গণেশের মূর্তি রাখুন। অফিসে বা ব্যবসার স্থলে দাঁড়িয়ে রয়েছে এমন কোন গণেশের মূর্তি বা ছবি রাখুন এবং এই সমস্ত স্থানে এমন গণেশের মূর্তি বা ছবি রাখুন যেখানে গণেশের পা মাটিতে রয়েছে।অফিসে বা ব্যবসার প্রধান প্রবেশদ্বারের মুখোমুখি গণেশের মূর্তি স্থাপন করা প্রয়োজন এতে বাইরে থেকে কোন নেগেটিভ এনার্জি প্রবেশ করতে পারে না অবশ্যই সাদা রঙের গণেশের মূর্তি রাখবেন। 


গণেশ দ্বাদশা নামাবলী মন্ত্র

গণেশ দ্বাদশা নামাবলী মন্ত্র // Dwadasha Namavali Mantra of Lord Ganesha


সিদ্ধিদাতা গণেশের দ্বাদশা নামাবলী মন্ত্র এক শক্তিশালী মন্ত্র। ভগবান গণেশের আমাদের সকল দেব দেবীর পুজোর আগে বা যেকোন শুভ কাজের আগে পূজিত হন। তার মন্ত্র পাঠ করলে পাঠকের যেকোন দুঃখ কষ্ট দূর হয়ে আসে সুখ ও শান্তি। ভক্তদের যেকোন মনোস্কামনা পূরণ হয় এবং যেকোন সঙ্কট কেটে যায় নিমিষেই।

আপনারাও যদি প্রতি বুধবার কোন গণেশের মূর্তি বা ছবির সামনে বসে এই গণেশ দ্বাদশা নামাবলী মন্ত্র পাঠ করলে আপনার জীবনেও আসবে সুখ এবং সমৃদ্ধি এবং কেটে যাবে যেকোন সঙ্কট।

Dwadasha namavali mantra of lord Ganesha


Dwadasha Namavali of Lord Ganesha //গণেশ দ্বাদশা নামাবলী মন্ত্র 

1) মন্ত্র : ওম সুমুখায় নমঃ।
অর্থ: যার একটি সুন্দর মুখ আছে।
নাম : সুমুখায়।

2) মন্ত্র : ওম একদন্তায় নমঃ।
অর্থ : একটি দাঁত আছে যার।
নাম : একদন্তায়

3) মন্ত্র : ওম কপিলায় নমঃ।
অর্থ :
নাম : কপিলায়।

4) মন্ত্র : ওম গজকর্ণকায় নমঃ।
অর্থ : হাতির ন‍্যায় কান রয়েছে যার।
নাম : গজকর্ণকায়।

5) মন্ত্র : ওম লম্বোদরায় নমঃ।
অর্থ : একটি লম্বা অর্থাৎ উদর অর্থাৎ পেট আছে যার।
নাম : লম্বোদরায়।

6) মন্ত্র : ওম বিকাটায় নমঃ।
অর্থ : যার বিশাল চেহারা বিশেষ।
নাম : বিকটায়

7) মন্ত্র : ওম বিঘ্নাশায় নমঃ।
অর্থ : বাধা বিপত্তি ধ্বংসকারী।
নাম : বিঘ্নাশায়।

8) মন্ত্র : ওম বিনায়কায় নমঃ।
অর্থ : যার নেতৃত্ব দেওয়ার গুণ আছে।
নাম : বিনায়ক।

9) মন্ত্র : ওম ধুম্রকেতভে নমঃ।
অর্থ : ধুম্র রং অর্থাৎ ধোঁয়াটে রং আছে যার।
নাম : ধুম্রকেতু।

10) মন্ত্র : ওম গণাধ্যক্ষায় নমঃ।
অর্থ : গণদের অধ‍্যক্ষ যিনি।
নাম : গণাধ্যক্ষ।

11) মন্ত্র : ওম ভালচন্দ্রায় নমঃ।
অর্থ : যার মস্তকে চাঁদ রয়েছে।
নাম : ভালচন্দ্রায়।

12) মন্ত্র : ওম গজাননায় নমঃ।
অর্থ : একজন যার মুখ হাতির মতো।
নাম : গজানন।

Sunday, May 8, 2022

জীবনের দুর্দশা কাটাতে পাঠ করুন দুর্গা চালিশা এবং জানুন এর উপকারিতা

দুর্গা চালিশা ছাড়া মা দুর্গার পূজা অসম্পূর্ণ বলে মনে করা হয়। মা দুর্গার উদ্ভব হয়েছিল অধর্মকে নাশ করে ধর্মকে রক্ষা করতে। শাস্ত্র অনুসারে, কোনও শুভ অনুষ্ঠানে মা দুর্গার স্তব করার জন্য দুর্গা চালিসা পাঠ করা অত‍্যন্ত শুভ বলে মনে করা হয়। ভক্তরা যদি রোজ স্নান সেরে পরিস্কার বস্ত্র পরিধান করে মা দুর্গার ছবির সামনে লাল আসনের ওপর বসে ধূপ ও প্রদীপ জ্বালিয়ে এই দুর্গা চালিশা পাঠ করেন তাহলে তার জীবনের সমস্ত বাধা বিপত্তি দূর হয়ে জীবন হয়ে উঠবে সুখ ও সমৃদ্ধিতে ভরপুর।


Durga Chalisa



আসুন তাহলে দেখেনি দুর্গা চালিশা পাঠের উপকারিতা : 


  • দুর্গা চালিসা পাঠ করে আপনি আপনার পরিবারকে আর্থিক ক্ষতি, দুর্দশা এবং বিভিন্ন ধরণের দুঃখ থেকে রক্ষা করতে পারেন। অর্থাৎ আপনার জীবনে আর্থিক উন্নতি ঘটবে এবং জীবনের সমস্ত রকম সংকট দূর হবে।
  • প্রতিদিন দুর্গা চালিসা পাঠ করলে আপনার শরীরে Positive শক্তি আসে এবং সমস্ত Negative শক্তি দূরে যায় । 
  • মনকে শান্ত করতে চাইলে প্রতিদিন দুর্গা চালিসা পাঠ করুন।  বড় বড় ঋষিরাও মা দুর্গা চালিসা পাঠ করতেন, যাতে তারা তাদের মনকে শান্ত রাখতে পারেন।
  • যেকোনো শুভ অনুষ্ঠানে দুর্গা চালিসা পাঠ করলে একজন ব্যক্তির আধ্যাত্মিক শক্তির বিকাশ ঘটে। 
  • শত্রুদের মোকাবেলা করে তাদের পরাজিত করার ক্ষমতাও গড়ে ওঠে এই দুর্গা চালিশা পাঠ করে।
  • দুর্গা চালিসা পাঠ করলে আপনি আপনার যে সামাজিক মর্যাদা হারিয়েছেন তা পুনরুদ্ধার করতে পারে।
  • মা দুর্গার আরাধনা করলে আপনি নেতিবাচক চিন্তা থেকে দূরে থাকবেন।




শ্রী দুর্গা চালীসা



নমো নমো দুর্গে মুখ করনী।

নমো নমো আস্তে মুর্খ হানী।।


নিরংকার হ্যায় জ্যোতি তুমহারী।

তিঁহু লোক ফৈশী উজিয়ারী।।


শশি লিলার মুখ মহা বিশালা।

নেত্র লাল ভূকুটী বিকরালা।।


রূপ মাতু কো অধিক সুহাবে।

দরশ করত জন অতি সুখ পাবে।।


তুম সংসার শক্তি লয় কীনা।

পালন হেতু অন্ন ধন দীনা।।


অন্নপুরনা হুই জগ পালা।

তুম হী আদি সুন্দরী বালা।।


প্রলয়কাল সব নাশন হারী।

তুম গৌরী শিব শংকর প্যারী।।


শিব যোগী তুমহরে গুণ গাবে।

ব্রহ্মা বিষ্ণু তুমহে নিত ধ্যাবে।।


রূপ সরস্বতী কো তুম ধারা।

দে সুবুদ্ধি ঋষি মুনিন উবারা।।


ধরা রূপ নরসিংহ কো অঙ্গা।

পরগট ভই ফাড় কর খম্বা।।


রক্ষা করি প্রহলাদ বচায়ো।

হিরণাকুশ কো স্বর্গ পঠানো।।


লক্ষ্মী রূপ ধরো জগ মাহী।

শ্রী নারায়ণ অংগ সমাহী।।


ক্ষীরসিন্ধু মে করত বিলাসা।

দয়া সিন্ধু দীজৈ মন আসা।।


হিংগলাজ মে তুমহী ভবানী।

মহিমা অমিত ন জাত বখানী।।


মাতঙ্গী ধূমাবতী মাতা।

ভুবনেশ্বরী বগলা সুখ ধাতা।।


শ্রী ভৈরব তারা জগ তারিণী।

ছিন ভাল ভব দুঃখ নিবারিণী।।


কেহরি বাহন সোহ ভবানী।

লাঁগুর বীর চলত অগবানী।।


কর মেঁ খপ্পর খড়গ বিরাজে।

জাকো দেখ কাল ডর ভাজে।।


সোহে অস্ত্র ঔর ত্রিশুলা।

জাতে উঠত শত্রু হিয় শুলা।।


নাগ কোটি মেঁ তুমহী বিরাজত।

তিহুঁ লোক মেঁ ডংকা বাজত।।


শুম্ভ নিশুদ্ধ দানব তুম মারে।

রক্তবীজ শঁখন সঁহারে।।


মহিষাসুর নৃপ অতি অভিমানী।

জেহি অঘ ভার মহী অকুলানী।।


রূপ করাল কালী কো ধারা।

সেন সহিত তুম তিহি সংহারা।।


পরী গাঢ় সম্ভন পর জব জব।

ভই সহায়মাতু তুম তব-তব।।


অমর পুরী ঔরো সব লোকা।

তব মহিমা সব রহে অশোকা।।


বালা মেঁ হ্যায় জ্যোতি তুমহারী।

তুমহে সদা পুজে নর নারী।।


প্রেম ভক্তি সে জো জস গাবো।

দুঃখ দারিদ্র নিকট নহি আবে।।


ধ্যাবৈ তুমহে জো নর মন লাই।

জন্ম মরণ তাকো ছুটি জাই।।


জোগী সুর মুনি কহত পুকারী।

যোগ না হো বিন শক্তি তুমহারী।।


শংকর আচারজ তপ কীনোঁ।

কাম অরু ক্রোধ জীতি সব লীনোঁ।।


নিশি দিন ধ্যান ধরো শংকর কো।

কাহু কাল নহি সুমিরো তুমকো।।


শক্তি রূপ কো মরম না পায়ো।

শক্তি গই তব মন পছিতায়ো।।


শরণাগত হুই কীর্তি বখানী।

জয় জয় জয় জগদম্ব ভবানী।।


ভই প্রসন্ন আদি জগদম্বা।

দই শক্তি নহী কীন বিলম্বা।।


মোকো মাতু কষ্ট অতি ঘেরো।

তুম বিন কৌন হরে দুঃখ মেরো।।


আশা তৃষ্ণা নিপট সতাবে।

রিপু মুরখ মোহি অতি ডরপাবে।।


শত্রু নাশ কীজৈ মহারানী।

সুমিরোঁ ইক চিত তুমহেঁ ভবানী।।


করো কৃপা হে মাতু দয়ালা।

ঋদ্ধি সিদ্ধি দে করহু নিহালা।।


জব লগি জিয়ো দয়া ফল পাউঁ।

তুমহরো জস ম্যায় সদা সুনাউ।।


দুর্গা চালীসা জো গাবৌ।

সব সুখ ভোগ পরম পদ পাবে।।


দেবীদাস শরণ নিজ জানী।

করহু কৃপা জগদম্ব ভবানী।।

Jay Sri Ram

শিব দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ স্তোত্রম

শিব দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ স্তোত্রম // Shiva Dwadasha Jyotirlinga Stotram দ্বাদশ জ্যোতির্লিঙ্গ স্তোত্র হল ভগবান শিবের এক শক্তিশালী মন্ত্র।ভগব...